সিডনী শুক্রবার, ২৪শে সেপ্টেম্বর ২০২১, ৮ই আশ্বিন ১৪২৮


সিডনিতে বাফেনিক এর প্রতিবাদ সভা


প্রকাশিত:
১৩ সেপ্টেম্বর ২০২১ ১১:৩৪

আপডেট:
২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১ ০১:০০

গত ১১ই সেপ্টেম্বর ২০২১ রোজ শনিবার অস্ট্রেলিয়ার সিডনিতে বাকশালী-ফ্যাসিষ্ট নির্মূল কমিটি (বাফেনিক)র' অনলাইন প্রতিবাদ সভার আয়োজন করা হয়। বাংলাদেশে লাগাতার স্বৈরাচার আওয়ামীলীগ সরকার দ্বারা নিরীহ জনগণ নিষ্পেষিত ও নির্যাতিত হওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে দেলওয়ার হোসেনের সভাপতিত্বে ও ডিএইচএম ইসমাইলের সঞ্চালনায় এ প্রতিবাদ সভার আয়োজন করা হয়।
জন্মলগ্নে এই সংগঠনের নাম ছিল ‘পূর্ব পাকিস্তান আওয়ামী মুসলিম লীগ’। ১৯৪৯ সালের ২৩ ও ২৪ জুন ঢাকার কেএম দাস লেনে অবস্থিত ঐতিহাসিক ‘রোজ গার্ডেন’ প্রাঙ্গণে হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দীর অনুসারি মুসলিম লীগের প্রগতিশীল কর্মীদের নিয়ে অনুষ্ঠিত সম্মেলনে ‘পূর্ব পাকিস্তান আওয়ামী মুসলিম লীগ’ নামে পাকিস্তানের প্রথম বিরোধী দলের আত্মপ্রকাশ ঘটে। সংগঠনটির প্রথম কমিটিতে মওলানা ভাসানী সভাপতি ও শামসুল হক সাধারণ সম্পাদক এবং জেলে থাকা অবস্থায় যুগ্ম-সম্পাদক নির্বাচিত হন শেখ মুজিবুর রহমান।
স্বাধীনতার পর ১৯৭২-৭৫ সময়কালীন শাসনামলে আওয়ামী লীগ সরকার মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম প্রধান চেতনা গনতন্ত্রকে বিসর্জন দিয়ে একদলীয় অভিনব বাকশাল তথা স্বৈরাচারী শাসন ব্যবস্থা চালু করেছিল। ২০১৪ সালের ৫ই জানুয়ারী ক্ষমতায় থেকেই গায়ের জোরে নিজ দলীয় সরকারের অধীনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায়, একতরফা ও ভোটার বিহীন এক মিডনাইট নির্বাচনের মাধ্যমে সংসদের প্রায় ৩০০ আসনেই “জয়ী” হয়ে এখন নিরংকুশ সংখ্যাগড়িষ্ঠতার জোরে দলীয় তথা স্বীয় স্বার্থে সংসদে যা ইচ্ছা তাই অনুমোদন বা পাশ করিয়ে নিচ্ছে।
বাংলাদেশে বিএনপির এমন কোনও নেতাকর্মী নেই যার বিরুদ্ধে মামলা বা হামলা নেই। কেন, এতো মামলা, এতো খুন, এতো গুম। শুধু মাত্র ক্ষমতায় টিকে থাকার জন্য ! কোনও স্বৈরাচারী সরকার ক্ষমতায় টিকে থাকতে পারে নাই, ক্ষমতা ছাড়তে হয়েছে। তাদেরকেও ছাড়তে হবে। বর্তমান অবৈধ ভারতের দালাল আওয়ামীলীগ সরকার বিরোধীদলকে নিষ্ক্রিয় করার হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করছে গুম, খুনকে। সরকারের প্রায় প্রতিটি চরিত্রহীন আমলা -মন্ত্রীরা নেশাখোর বা মাতালের মতো সর্বদা উল্টা পাল্টা মানহানিকর বক্তব্য দিচ্ছেন।
বাফেনিকের নেতা কর্মীরা বলেন-আমরা অবৈধ অসুস্থ খুনি এ সরকারের পতন চাই। প্রবাস থেকে বিশাল কর্মসূচি দিয়ে অগনতান্ত্রিক -ভারতীয় রাজাকারদের প্রতিহত করে দেশে আইনের সুশাসন কায়েম এবং অতি দ্রুত পূর্ণাঙ্গ কমিটির রূপরেখা প্রকাশ করে নিরীহ ,অসহায় ও মুক্তিকামী মানুষের পাশে দাঁড়াবার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন।


বিষয়:


আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


Top