সিডনী মঙ্গলবার, ১৮ই জানুয়ারী ২০২২, ৪ঠা মাঘ ১৪২৮


অস্ট্রেলিয়ার আদালতে বিশাল জয় জকোভিচের


প্রকাশিত:
১১ জানুয়ারী ২০২২ ১২:১৮

আপডেট:
১৮ জানুয়ারী ২০২২ ০৪:১৯

 

প্রভাত ফেরী: মুক্তি পেতে যাচ্ছেন টেনিস তারকা নোভাক জোকোভিচ। অস্ট্রেলিয়ার একটি আদালত বিশ্বের এক নম্বর টেনিস তারকাকে মুক্তির নির্দেশ দিয়ে জানিয়েছেন, তাঁর ভিসা বাতিল করার যে সিদ্ধান্ত অস্ট্রেলীয় সরকার নিয়েছিল, সেটি ‘অযৌক্তিক’। বিচারক আরও নির্দেশ দিয়েছেন, আইনি লড়াইয়ে জোকোভিচের যা খরচ হয়েছে তা প্রশাসনকে দিতে হবে। এই মুহূর্তে জোকারকে যেখানে রাখা হয়েছে সেখান থেকে তাঁকে আধ ঘণ্টার মধ্যে মুক্তি দিতে হবে।

তাঁর পাসপোর্ট ও ব্যক্তিগত সামগ্রী ফিরিয়ে দেওয়ারও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। অস্ট্রেলিয়া সরকার আদালতে মেনে নিয়েছে, জোকোভিচের ভিসা বাতিলের সিদ্ধান্ত নেওয়ার পরে তাঁকে সে কথা জানাতে দেরি হয়েছে। ফলে কোনও পদক্ষেপ করতে পারেননি জোকোভিচ। করোনার দুই ডোজ টিকা না নিয়ে গত বৃহস্পতিবার অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্নে নামলে জোকোভিচকে আটক করা হয়। অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে অংশগ্রহণের উদ্দেশ্যেই মেলবোর্নে পা রেখেছিলেন ৩৪ বছর বয়সী সার্বিয়ান টেনিস তারকা।

কয়েক দিন ধরেই মেলবোর্নের একটি কোয়ারেন্টিন কেন্দ্রে আটক ছিলেন জোকোভিচ। তাঁর পক্ষ থেকে দাবি করা হয়, মেলবোর্নে তিনি এসেছিলেন স্বাধীন মেডিকেল প্যানেলের ছাড়পত্র নিয়েই। সেই ছাড়পত্র দেখেই অস্ট্রেলিয়ান ওপেন টেনিসের আয়োজক সংস্থা টেনিস অস্ট্রেলিয়া তাঁকে টুর্নামেন্টে অংশ নেওয়ার অনুমতি দিয়েছিল। সেই ছাড়পত্রের ভিত্তিতেই ভিক্টোরিয়া রাজ্য সরকার তাদের রাজ্যে জোকোভিচকে প্রবেশের অনুমতি দিয়েছিল।

অস্ট্রেলিয়ার ইমিগ্রেশন আইন অনুযায়ী, অস্ট্রেলিয়ায় প্রবেশ করতে হলে প্রত্যেক বিদেশি নাগরিকের করোনার দুই ডোজ টিকা নেওয়া থাকতে হবে। জোকোভিচ বরাবরই করোনার টিকা না নেওয়ার ব্যাপারে সংকল্পবদ্ধ। অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে খেলার জন্য তাঁকে অস্ট্রেলিয়ায় প্রবেশ করার অনুমতি দেওয়ার পর থেকেই দেশটিতে তীব্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়।

প্রশ্ন ওঠে, টেনিস অস্ট্রেলিয়া কিসের ভিত্তিতে তাঁকে এ টুর্নামেন্টে খেলার অনুমতি দিয়েছে। অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন এরপর সোজা জানিয়ে দেন, জোকোভিচ যত বড় টেনিস খেলোয়াড় কিংবা তারকাই হোন না কেন, তাঁকে অস্ট্রেলিয়ার আইন মানতে হবে। এরপর গত বৃহস্পতিবার মেলবোর্ন বিমানবন্দরে নামার সঙ্গে সঙ্গে ভিসা বাতিল করে তাঁকে পাঠানো হয় একটি কোয়ারেন্টিন কেন্দ্রে।

জোকোভিচের সঙ্গে এই আচরণে মিশ্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয় গোটা দুনিয়ায়। সার্বিয়া সরকার তো অস্ট্রেলিয়ার এই পদক্ষেপকে ‘ঔপনিবেশিক’ বলে এর তীব্র প্রতিবাদ জানায়। তবে এর পরেও জোকোভিচের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পারে অস্ট্রেলিয়ার ইমিগ্রেশন মন্ত্রী অ্যালেক্স হক। তিনি ব্যক্তিগত ভাবে বা সম্পূর্ণ আলাদা কোনও কারণ দেখিয়ে নতুন ভাবে টেনিস তারকার ভিসা বাতিল করতে পারেন।

সেরকম হলে তিন বছর অস্ট্রেলিয়ায় প্রবেশ করতে পারবেন না জোকার। কিন্তু নাটক যেন শেষ হয়েও হচ্ছে না। সার্বিয়ান টেনিস তারকা বাবা জানিয়েছেন আইনি লড়াই জিতে যাওয়ার পর অস্ট্রেলিয়ান বর্ডার পুলিশ আবার নাকি আটক করেছে জোকারকে।

 


বিষয়:


আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


Top