সিডনী শুক্রবার, ৩০শে জুলাই ২০২১, ১৫ই শ্রাবণ ১৪২৮


ইরানের সংবাদমাধ্যমের উপর যুক্তরাষ্ট্রের আক্রমণ


প্রকাশিত:
২৩ জুন ২০২১ ১৫:২৪

আপডেট:
৩০ জুলাই ২০২১ ১৭:১৮

 

প্রভাত ফেরী: ইরানের দুই ডজনেরও বেশি সংবাদমাধ্যমের ওয়েবসাইট ব্লক করে দিয়েছে অ্যামেরিকা। বলা যায় এটি সংবাদমাধ্যমের উপর বড়সড় আক্রমণ।

ইরানের দাবি, মঙ্গলবার (২২ জুন) হঠাৎই সংবাদমাধ্যমগুলির ওয়েবসাইট ব্লক হয়ে যায়। পেজে ভেসে ওঠে ওয়েবসাইটটি ‘সিজ’ অর্থাৎ, বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। প্রাথমিক ভাবে খবরের সত্যতা স্বীকার না করলেও পরে মার্কিন প্রশাসন খবরটি স্বীকার করে নেয়।

মার্কিন বিচার বিভাগ বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছে, সব মিলিয়ে ইরানের ৩৩টি ওয়েবসাইট বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। এর ফলে ওই ওয়েবসাইটের কোনো খবর পাঠক দেখতে পাবেন না। প্রতিটি ওয়েবসাইটই কোনো না কোনো ভাবে ইরান প্রশাসনের সঙ্গে যুক্ত এবং তারা ভুল খবর প্রচার করছিল বলে অভিযোগ।

ওয়েবসাইট গুলির মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ ইরানিয়ান ইসলামিক রেডিও অ্যান্ড টেলিভিশন, কাতা-ইব-হিজবোল্লাহ পরিচালিত তিনটি ওয়েবসাইট। এই সবকটি ওয়েবসাইটের উপরেই অ্যামেরিকা নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল বলে জানিয়েছে মার্কিন প্রশাসন। বস্তুত, এই সবকটি ওয়েবসাইটের সঙ্গেই চরমপন্থি ও জঙ্গি সংগঠনের যোগাযোগ আছে বলেও অভিযোগ করেছে অ্যামেরিকা।

ব্লক হওয়ার পরে প্রতিটি ওয়েবসাইটেই এফবিআই-য়ের লোগো দেখা যাচ্ছে। সেখানে বাজেয়াপ্ত হওয়ার কারণ লেখা নোটিসও টাঙিয়ে দেওয়া হয়েছে।

ইসলামিক রিপাবলিক অফ ইরান ব্রডকাস্টিং অ্যামেরিকার এই কাজের তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে। এই সংস্থাই ইরানের সমস্ত টেলিভিশন, রেডিও, ওয়েবসাইটের উপর নজর রাখে।

বিবৃতি দিয়ে তারা জানিয়েছে, এই ঘটনার মাধ্যমে ইরানের বাক-স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ করেছে অ্যামেরিকা। যা মৌলিক অধিকার। তাদের বক্তব্য, ইসরায়েল এবং সৌদি আরবের সাহায্য নিয়ে অ্যামেরিকা একাধিক ওয়েবসাইট বন্ধ করেছে। ওই ওয়েবসাইটগুলি মার্কিন অত্যাচার, অন্যায়ের বিরুদ্ধে কথা বলতো। গত এক বছর ধরে অ্যামেরিকার সঙ্গে ইরানের সম্পর্ক একেবারে তলানিতে গিয়ে ঠেকেছে। জো বাইডেন ক্ষমতায় আসার পরেও তার উন্নতি হয়নি। বরং ইরানের পরমাণু সংক্রান্ত কার্যকলাপ ভালো চোখে দেখেননি বাইডেন। ইরানের উপর তিনিও চাপ বাড়িয়েছেন।রয়টার্স,এপি/ডয়েচে ভেলে

 



আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


Top