সিডনী বৃহঃস্পতিবার, ৯ই ডিসেম্বর ২০২১, ২৫শে অগ্রহায়ণ ১৪২৮


মেসির নৈপুণ্যে পিএসজির জয়


প্রকাশিত:
২০ অক্টোবর ২০২১ ০৭:৫৫

আপডেট:
৯ ডিসেম্বর ২০২১ ১৯:৪০

 

প্রভাত ফেরী: নেইমারকে ছাড়া খেলতে নেমে একটা সময় হার চোখ রাঙাচ্ছিল পিএসজিকে। তবে জার্মান ক্লাব লাইপজিগের বিপক্ষে দলের অন্য দুই তারকা লিওনেল মেসি এবং কাইলিয়ান এমবাপের নৈপুণ্যে ৩-২ গোলের জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে ফরাসি ক্লাবটি।

পার্ক দে প্রিন্সেসে গতকাল রাতে চ্যাম্পিয়নস লিগের ম্যাচে লাইপজিগকে আতিথেয়তা দেয় পিএসজি। ম্যাচের প্রথম গোলটিও স্বাগতিকদের। জুলিয়ান ড্রাক্সলারের কাছ থেকে বল পেয়ে ডি বক্সের বাইরে থেকেই নেয়া দারুণ শটে দলকে এগিয়ে নেন এমবাপে।

এমবাপের গোলের পর খেই হারায় পিএসজি। ছন্নছাড়া ফুটবল খেলতে থাকে দলটির ফুটবলাররা। মলিন ছিলেন মেসিও। সেই সুযোগটা লুফে নেয় লাইপজিগ। ২৭ মিনিটে ক্লাবটির পর্তুগিজ ফরোয়ার্ড আন্দ্রে সিলভা বাঁ-প্রান্ত থেকে আসা অ্যাঞ্জেলিনোর মাটি ঘেঁষা ক্রস দারুণ প্লেসমেন্টে জড়ান জালে।

সিলভার গোলে সমতায় ফেরার পর দ্বিতীয়ার্ধে পিএসজিকে ভড়কে দেন নর্দি মুকিয়েলে। এবারো বাঁ-প্রান্ত থেকে সেই অ্যাঞ্জেলিনোর ক্রস, তবে বল এলো উড়ে। উড়ন্ত সেই বলকে জালে পাঠানোর কাজটি করলেন মুকিয়েলে। ৫৭ মিনিটে ভলি শটে পিএসজি গোলরক্ষক কেইলর নাভাসকে পরাস্ত করেন এই ফরাসি ডিফেন্ডার।

২-১ গোলে পিছিয়ে পড়া পিএসজিকে হার যখন উঁকি দিচ্ছিল, তখনই জেগে উঠলেন মেসি। আক্রমণভাগে তার রসায়ন জমে উঠল এমবাপের সঙ্গে। ৬৭ মিনিটে পিসজিকে সমতায় ফেরানো গোলটি আসে এ মৌসুমে পিএসজিতে যোগ দেয়া মেসির পা থেকে।

ডি বক্সে এমবাপের উদ্দেশ্যে প্রথমে বলটা মেসিই বাড়ান। তবে তিনি শট না নিয়ে সেই বল আবার দেন মেসিকে। এই আর্জেন্টাইন আর সময়ক্ষেপণ না করে জাদুকরী বাঁ পায়ে নেন শট। প্রথম শটে অবশ্য বল পোস্টে লেগে গোললাইনের কাছে ঘুরতে থাকে। সেই বল লাইপজিগের কেউ ক্লিয়ার করার আগেই মেসি ফিরতে শটে পাঠান জালে।

ম্যাচ শেষের ২৫ মিনিট আগে মেসির এই গোল জমিয়ে তোলে ম্যাচ। আত্মবিশ্বাস ফিরে পাওয়া পিএসজি বাড়িয়ে দেয় নিজেদের আক্রমণ। তার ফলটাও হাতেনাতে পায় মরিসিও পচেত্তিনো দল। ৭৩ মিনিটে এমবাপের গতির সঙ্গে পেরে না উঠে তাকে হাত দিয়ে অবৈধভাবে ডি বক্সে ফেলে দেন মোহামেদ সিমাকান। পেনাল্টি পায় পিএসজি।

এমবাপে মাঠে থাকলেও, পেনাল্টি নেন মেসিই। খুঁজে নেন জালও। পেনাল্টি থেকে তার গোলটাও ছিল দেখার মতো। বিখ্যাত পানেনকা শটে পিএসজিকে স্বস্তির গোলটা এনে দেন এই আর্জেন্টাইন মহাতারকা।

ম্যাচের একদম অন্তিম মুহূর্তে আরেকটি পেনাল্টি থেকে ব্যবধান বাড়ানোর সুযোগ পেয়েছিল পিএসজি। মেসি হ্যাটট্রিকের সহজতম সুযোগের মায়া ছেড়ে এমবাপেকে নিতে দেন সেই পেনাল্টি। তবে এই ফরাসি তারকা স্পটকিক থেকে বল ক্রসবারের অনেক ওপর দিয়ে মারেন বাইরে। ফলে ৩-২ গোলের জয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হয় স্বাগতিকদের।

একই গ্রুপের আরেক ম্যাচে ক্লাব ব্রুজকে স্রেফ উড়িয়ে দিয়েছেন ম্যানচেস্টার সিটি। বেলজিয়ান ক্লাবটিকে ৫-১ বিধ্বস্ত করে সিটিজেনরা। দলের হয়ে জোড়া গোল করেন রিয়াদ মাহরেজ। একটি করে গোল করেছেন জোয়াও ক্যানসেলো, কাইল ওয়াকার এবং কোলে পালমার। ব্রুজের হয়ে সান্ত্বনাসূচক গোলটি করেন হান্স ভানাকেন।

এ জয়ে তিন ম্যাচে ৬ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপ ‘এ’-এর দুইয়ে আছে ম্যানসিটি। ৪ পয়েন্ট নিয়ে তিনে ব্রুজ। এখন পর্যন্ত কোনো জয় না দেখা লাইপলিগ আছে চারেই। আর তিন খেলায় ৭ পয়েন্ট নিয়ে সবার ওপরে মেসি-এমবাপেদের পিএসজি।

 



আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


Top