সিডনী বৃহঃস্পতিবার, ৯ই ডিসেম্বর ২০২১, ২৫শে অগ্রহায়ণ ১৪২৮


‘প্রস্তাবের বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সাথে কথা বলবে তুরস্ক’


প্রকাশিত:
১৮ অক্টোবর ২০২১ ০৬:৫৩

আপডেট:
৯ ডিসেম্বর ২০২১ ১৮:৪০

 

প্রভাত ফেরী: রাশিয়ার কাছ থেকে ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা কেনার পর তুরস্ককে এ এফ-৩৫ জঙ্গিবিমান প্রকল্প থেকে বাদ দেয়া হয়। রোববার তিনি এমন বক্তব্য দেন বলে জানিয়েছে আল-জাজিরা। এবার তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েব এরদোগান বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্র প্রস্তাব দিয়েছে এফ-৩৫ জঙ্গিবিমান প্রকল্পে তুরস্কের দেয়া বিনিয়োগের অর্থের পরিবর্তে দেশটির কাছে এফ-১৬ জঙ্গিবিমান বিক্রি করা হবে। এ বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সাথে কথা বলবে তুরস্ক।

আফ্রিকা মহাদেশে সফরে যাওয়ার আগে রজব তাইয়েব এরদোগান সাংবাদিকদের বিভিন্ন বিষয়ে তথ্য দিয়েছেন। এ সময় রজব তাইয়েব এরদোগান বলেন, এফ-৩৫ জঙ্গিবিমান প্রকল্পে তুরস্ক যে অর্থ বিনিয়োগ করেছে তা ফেরত চায় দেশটি। কিভাবে অর্থ ফেরত দেয়া হবে তা নিয়ে (যুক্তরাষ্ট্রের সাথে) আলোচনা চলছে। এ বিষয়ে আমাদের বক্তব্য হলো, আমাদের দেশের প্রতিরক্ষায় যা প্রয়োজন হবে তা পূরণে আমরা ব্যবস্থা নিব।

এ তুর্কি নেতা বলেন, তুরস্কের বিমানবাহিনীর উন্নয়নে আমরা আমাদের হাতে থাকা এফ-১৬ জঙ্গিবিমানগুলোর উন্নয়ন করব এবং নতুন করে আরো কিছু এফ-১৬ জঙ্গিবিমান কেনা হবে।

এরদোগান বলেন, যুক্তরাষ্ট্র প্রস্তাব দিয়েছে এফ-৩৫ জঙ্গিবিমান প্রকল্পে তুরস্কের দেয়া বিনিয়োগের অর্থের পরিবর্তে দেশটির কাছে এফ-১৬ জঙ্গিবিমান বিক্রি করা হবে। এ বিষয়টি নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সাথে আরো আলোচনা করা হবে।

তুরস্ক এর আগে লকহিড মার্টিন কর্পোরেশন নির্মিত (১০০টি) এফ-৩৫ জঙ্গিবিমান কেনার জন্য জন্য অর্ডার দিয়েছিল এবং এ জঙ্গিবিমান প্রকল্পে ১.৪ বিলিয়ন মার্কিন ডলার বিনিয়োগ করেছে। কিন্তু, রাশিয়ার এস-৪০০ আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা কেনার জন্য ২০১৯ সালে তুরস্ককে এফ-৩৫ জঙ্গিবিমান প্রকল্প থেকে বাদ দেয়া হয় এবং দেশটির কাছে কোনো এফ-৩৫ জঙ্গিবিমান বিক্রি করা হবে না বলে জানিয়ে দেয়া হয়। এছাড়া রাশিয়ার কাছ থেকে ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা কেনার দায়ে তুরস্কের ওপর বিভিন্ন নিষেধাজ্ঞাও আরোপ করা হয়। সূত্র : আল-জাজিরা।

 


বিষয়: এরদোগান


আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


Top