সিডনী বৃহঃস্পতিবার, ২৪শে জুন ২০২১, ৯ই আষাঢ় ১৪২৮


বাণিজ্য মেলা শুরু, প্রস্তুত নয় বেশিরভাগ স্টল-প্যাভিলিয়ন


প্রকাশিত:
২ জানুয়ারী ২০২০ ১৯:২০

আপডেট:
২৪ জুন ২০২১ ০০:৩৬

ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলার গেইট

প্রভাত ফেরী ডেস্ক: রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে শুরু হয়েছে ২৫তম ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা ২০২০। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বুধবার আনুষ্ঠানিকভাবে এ মেলার উদ্বোধন করেন। বছরের প্রথম দিন থেকেই শুরু হয়েছে মাসব্যাপী এই আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা। রাজধানীর আগারগাঁওয়ে ৩২ একর জমির ওপর আয়োজিত এবারের বাণিজ্য মেলায় মোট স্টল বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে ৪৮৩টি। উদ্বোধনের পর মেলা ঘুরে দেখা গেছে, অর্ধেকের বেশি স্টলই এখনও প্রস্তুত হয়নি। ব্যবসায়ীরা বলছেন, সময় কম পাওয়ায় স্টল তৈরি করতে দেরি হচ্ছে। তবে মেলার আয়োজকরা বলছেন, পর্যাপ্ত সময় দিয়েই স্টল বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে।

মেলার বিভিন্ন স্থানে ঘুরে দেখা গেছে অধিকাংশ স্টল নির্মাণের কাজ এখনও পুরোপরি শেষ হয়নি। মেলায় ঢুকলেই দর্শনার্থীরা দেখতে পারবেন নির্মাণ কাজের দৃশ্য এবং তাদের কানে ভেসে আসবে কাঠ, হাতুড়ি, পেরেকের ঠকঠক শব্দ। যেসব প্রতিষ্ঠন তাদের স্টল নির্মাণ শেষ করতে পারেনি তাদের মধ্যে যেমন রয়েছে দেশি প্রতিষ্ঠান তেমনি রয়েছে বিদেশি প্রতিষ্ঠানও।

প্রথম দিন মেলা প্রাঙ্গণে ঘুরে দেখা যায়, মেলায় সাজিয়ে রাখা বিভিন্ন ফুলের পার্কের পাশে বসে আনন্দ উপভোগ করছেন অনেকে। আবার কেউ কেউ ব্যস্ত ছিলেন সেলফি তোলায়। আবার কেউ ঘুরছেন পছন্দের পণ্যের খোঁজে।

আবির হোসেন নামে এক দর্শনার্থী বলেন, মেলায় এসেছি, ঘুরছি। বাণিজ্য মেলায় বিভিন্ন কোয়ালিটির ব্লেজার পাওয়া যায়। তাই ব্লেজার কিনতে এসেছি। কিন্তু এখনো অনেক স্টল প্রস্তুত হয়নি। আবার আসতে হবে।

দেশি যেসব প্রতিষ্ঠন কাজ শেষ করতে পারেনি তাদের অধিকাংশই ছোট প্রতিষ্ঠান। তবে বড় যেসব প্রতিষ্ঠান তাদের নির্মাণ কাজ এখনও শেষ করতে পারেনি তাদের সংখ্যা খুব বেশি নয়। বড় প্রতিষ্ঠানগুলো বুধবার মেলার প্রথম দিন থেকেই তাদের বেচাবিক্রি শুরু করেছে।

আবার বেশ কিছু প্রতিষ্ঠানের স্টলে দেখা যায় তারা তাদের পণ্যগুলো সাজানোর কাজে ব্যস্ত রয়েছে। ভিআইপি গেট থেকে সার্ভিস গেট পর্যন্ত যেসব ছোট প্রতিষ্ঠানের স্টল রয়েছে তাদের নির্মাণ কাজ শেষ না হওয়ায় এখনও এসব স্টলগুলো অগোছালো অবস্থায় রয়েছে।

ভিআইপি গেট দিয়ে প্রবেশ করে পশ্চিম দিকে একটু সামনে গেলেই বাম দিকে দেখা যাবে নাবিস্ক বিস্কুটের প্যাভিলিয়ন। তাদের নির্মাণ কাজ শেষ হওয়াতে প্রথম দিন থেকেই তাদের প্যাভিলিয়নে দর্শনার্থী ও ক্রেতাদের যথেষ্ট ভিড় লক্ষ্য করা গেছে। তবে থাইল্যান্ড, চীন ও ভারতীয় পণ্যের যে সব প্যাভিলিয়ন রয়েছে সেখানে এখনও শোনা যাচ্ছে হাতুড়ির শব্দ। তাদের স্টল নির্মাণের কাজ এখনও শেষ হয়নি। একইভাবে উত্তর ও দক্ষিণ দিকে যেসব ছোট ছোট স্টল রয়েছে তাদেরও চলছে সাজানো গোছানোর কাজ।

বাণিজ্য মেলার সদস্য সচিব ও ইপিবির উপপরিচালক মোহাম্মদ আবদুর রউফ বলেন, আমাদের মেলার অধিকাংশ স্টল ও প্যাভিলিয়ন নির্মাণ শেষ হয়েছে। যারা শেষ করেছে তারা ইতোমধ্যে বেচাবিক্রি শুরু করেছে। কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের স্টল নির্মাণ এখনও শেষ করতে না পারলেও আজকের মধ্যে শেষ করতে পারবে বলে তিনি জানান।

তিনি বলেন, আমরা সর্বোচ্চ পর্যায়ে চেষ্টা করছি বাণিজ্য মেলাকে সুন্দরভাবে উপস্থাপন করতে। নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে আমাদের সব কাজ শেষ হয়েছে। ছোটখাট যেসব কাজ বাকি রয়েছে তাও আজকালের মধ্যে শেষ হবে।

বঙ্গবন্ধু প্যাভিলিয়নের ৩৬০ ডিগ্রি ইনসাইডসহ বঙ্গবন্ধুর দুর্লভ ছবি, তার জীবনের ওপর নির্মিত তথ্যচিত্র ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ঘরে বসে উপভোগ করতে পারবেন। এবার বাণিজ্য মেলার টিকেট অনলাইনে পাওয়ার সুযোগ রয়েছে। এবার প্রথমবারের মতো বিকাশের মাধ্যমে অনলাইনে বাণিজ্য মেলার টিকেট কেনা সুযোগ রয়েছে।


বিষয়:


আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


Top