সিডনী বৃহঃস্পতিবার, ২৪শে জুন ২০২১, ৯ই আষাঢ় ১৪২৮


বৌমাকে কি তবে মেয়ে ভাবা ভুল? : সত্যেন্দ্রনাথ পাইন


প্রকাশিত:
১১ মার্চ ২০২১ ১৪:১০

আপডেট:
২৪ জুন ২০২১ ০০:৪৬

 

অনেক দিন ধরেই  বৌ  কাকলি বোলতো-- বেশি বেশি ওর পিছনে ঘুরঘুর কোরোনা তো। বুঝিনি। বরং কাকলির ওপর রাগ করেছি। যত টা পেরেছি মেয়ের মতো ভালোবেসেছি ওকে আরো অনেক অনেক বেশি সময় ধরে।

হ্যাঁ "'সে'" মানে ছেলের বৌ- আমার সাধের বৌমা রিংকি। বড় ছেলেমানুষ। ভালো মেয়ে। কথায় কথায় শাশুড়িকে অমান্য করে চলে, দুরদারিয়ে বলে ফেলে। আমি বারণ করতে পারিনি। কিন্তু ভালোবাসা দিয়ে তাকে নিরস্ত করতে চেয়েছি। নিজের বৌ কাকলিকে যাতা বলেছি বরং। তবু মেয়ে ভেবে আদরে কাছে টেনে নিতে চেয়েছি।

কতবার বোঝাতে চেয়েছি ওতো মেয়ের মতো। ওকে কাছে করে টেনে নিলে ভুল হবেনা। কিন্তু বলা হয়নি, বোঝানো যায়নি।

কাকলি বলেছে--"ওকে তুমি চেনইনি। ওকে যে চিনেছে সে বুঝেছে"!

আমি বলতে চেয়েছি- ও- বড় ছেলেমানুষ। আমাদের মেয়েতো এখন শ্বশুর বাড়িতে- খুব কষ্ট পাচ্ছে। তাকে তো ফিরিয়ে আনতে পারবো না কোনও দিন। একে( রিংকি) কষ্ট দিও না।

ঘরে বসেই মেয়ের আদর খাবে। সব দেবে। ওকে কিছু বোলো না। শপিং করে দেবে। পছন্দের খাবার খাওয়াবে। অসুখে সেবা করবে।   কিন্তু বোঝেনি। তাই আমি তাকে বড় বেশি বেশি করে যত্নে লালন করতে চেয়েছি। নাঃ। হবেনা। ওকে মেয়ের মতো ভালোবাসলে ঘরের বাইরে যেতে হবেনা।

ঠিক না বেঠিক  কাকলিকে বোঝানো যায়নি। কাকলি বলেছিল -- তাতে আমার লাভ!?

লাভালাভ বলতে, বোঝাতে পারিনি। তবে মনে হয় রিংকি তো কারোর মেয়ে। ওকে কষ্ট দিলে সমান কষ্ট আমাদের মেয়েকেও ভোগ করতে হবে। তাই যতটা পারো ভালোবাসার চেষ্টা করো-- আখেরে আমাদেরই লাভ।

আমার কথা বোধহয় কেঊ শুনেছে, রিংকিও শুনেছে। হঠাৎই পেছন ফিরে দেখি কে যেন ডাকছে। নারী দিবসের কথা শুধু বলে কী লাভ ?

একদিন সেই রিংকিও আমাকে বললো-- আপনি তো আর আমার বাবা নন-- বুঝবেন কী করে আমার মনের ব্যথা! শেখাতে গিয়ে শিখলাম-- বৌমা বৌমাই থাকে। মেয়ে হতে পারেনা, পারবেও না।

মানুষ হতে চেয়ে অমানুষই হয়ে ফিরলাম। অথচ একদিন সামান্য ব্যাপারে রিংকি তার স্বামীর (আমার ঔরসজাত ছেলে) ওপর রাগ করে না খেয়ে ঘরে শুয়ে ছিল বলে ডেকে আনতে ঘরে গেছিলাম।

বৌমা বললোঃ আমাদের স্বামী স্ত্রীর ব্যাপারে আপনি এলেন কেন?

বেশ রক্তবর্ণ চোখ দেখলাম। তেড়ে এসে বললোঃ আমাকে মারুন। গায়ে হাত তুলুন। দেখি কত্ত সাহস-।

হায়রে কী শেখাতে এসে কী শিখলাম! বুঝলাম....

বৌমা কোনও দিন মেয়ে হতে পারে না। বৌমা বৌমাই। কেউ কারোর জায়গা নিতে চায়না। হয়তোবা সেজন্যই আমি হেরে গেলাম।

হে মহান গুরু এরপরেই আমাকে বাস্তব হতে শেখাও। আবেগের কথা ধুলোয় লুটিয়ে দাও।

 আমার মতো মানুষ যেন পৃথিবীর বুকে আর না আসে। শ্বশুর আর জন্মদাতা পিতা যেমন এক নয় তেমন আমি বুঝবো জানবো কবে!?

 

সত্যেন্দ্রনাথ পাইন
পশ্চিম বঙ্গ, ভারত

 

এই লেখকের অন্যান্য লেখা



আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


Top